উত্তাল আসাম, গোটা রাজ্য জুড়ে ধর্মঘট

0
1414
Assam Protest against CAB (1)

উত্তাল আসাম, গোটা রাজ্য জুড়ে ধর্মঘট

নতুন করে সবাইকে নাগরিকত্ব বিলের আওতায় আনার প্রতিবাদে আজ সোমবার থেকে আসাম জুড়ে পালিত হচ্ছে ৪৮ ঘণ্টার সাধারণ ধর্মঘট। অল মোরান স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (এএমএসইউ) এই বন্ধ ডেকেছে। বিল ছাড়াও ছয়টি সম্প্রদায়কে তফসিলি উপজাতির মর্যাদা দেওয়াতেও তাদের এই বন্ধ বলে জানা গিয়েছে। বন্ধের প্রভাবে আসামে বেশ কয়েকটি জেলায় সাধারণ জীবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আজ, সোমবার, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ লোকসভায় বলেন যে এই সংশোধনী বিল (২০১৯) এর মাধ্যমে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে আগত অমুসলিম শরণার্থীদের ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে।

ভোর ৫ টা থেকে বন্ধ কার্যকর হওয়ায় দোকানপাট, বাজার ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ থাকে। অন্যদিকে, লখিমপুর, ধেমাজি, তিনসুকিয়া, ডিগ্রুগড়, শিবসাগর, জোরহাট, মাজুলি, মরিগাঁও, বোঙ্গাইগাঁও, উদালগুড়ি, কোকরাঝার ও বাক্সা জেলায় স্কুল-কলেজগুলিও আজ বন্ধ থাকে।

যদিও সরকারী আধিকারিকরা বলে, এই বন্ধ বাঙালি অধ্যুষিত বরাক উপত্যকার জেলা কাছার, করিমগঞ্জ ও হাইলাকান্দির পাশাপাশি পার্বত্য জেলা যেমন কার্বি আংলং ও ডিমা হাসাওতে কোনও প্রভাব ফেলেনি।

গুয়াহাটিতেও বন্ধের প্রভাব ছিল নগণ্য। যদিও ওইসব এলাকাতে বেসরকারী অফিসগুলি বন্ধ ছিল এবং সরকারী দফতরেও উপস্থিতি ছিল কম ।

অনেক জায়গায় বিক্ষোভকারীরা টায়ার জ্বালিয়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ  এসে তাদের সরিয়ে দেয় এবং রাস্তা পরিস্কার করে কিছু দূরপাল্লার বাস পুলিশ এসকর্ট দ্বারা পাঠানো হয়। এছাড়াও ডিব্রুগড় ও গুয়াহাটিতে পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ বাধলে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। কাজিরাঙ্গা জাতীয় উদ্যান এবং জোড়াহাটে পর্যটকরা আটকে পড়ে কোন যানবাহন না পাওয়ায়।

বহু জায়গায় বিক্ষোভকারীরা এই সংশোধনী বিলের ( সিএবি) বিরোধিতা না করায় আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়ালের কুশপুতুল দাহ করে।

এই এলাকার সবথেকে বড় ছাত্র সংগঠন নর্থ ইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশন (এনইএসও) আগামী মঙ্গলবার উত্তর- পূর্বের সমস্ত রাজ্যে ১১ ঘণ্টা বন্ধের দাক দিয়েছে। যদিও নাগাল্যান্ড এই সময় হর্নবিল উৎসব চলার কারণে বন্ধের আওতায় পড়েনি।

এছাড়াও বাম-গণতান্ত্রিক সংগঠনগুলিও আগামী মঙ্গলবার ১২ ঘন্টার আসাম বন্ধ ঘোষণা করেছে।