টিকা নিয়েও ডেল্টা প্লাসে মৃত্যু, করোনার নতুন ভেরিয়েন্টে মহারাষ্ট্রে প্রাণ গেল অন্তত ৫ জনের

0
440
daily Covid numbers jumped

টিকা নিয়েও ডেল্টা প্লাসে মৃত্যু, করোনার নতুন ভেরিয়েন্টে মহারাষ্ট্রে প্রাণ গেল অন্তত ৫ জনের

সংবাদ সংস্থা, মুম্বই: করোনাভাইরাসের ডেল্টা প্লাস (Covid-19 Delta Plus) ভেরিয়েন্টের সংক্রমণে মহারাষ্ট্রে অন্তত ৫ জনের মৃত্যুর খবর মিলল। যাঁদের মধ্যে ১ জন মুম্বইয়ের বাসিন্দা। এবং এখনও পর্যন্ত মোট ৬৬ জনের শরীরে মিলেছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট।

মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিভাগের তরফ থেকেই এই খবর জানানো হয়েছে। আক্রান্তদের অনেকেরই টিকার দুটি ডোজই নেওয়া ছিল। তার পরেও আটকানো যায়নি সংক্রমণ। আর আক্রান্তদের মধ্যে অন্তত ৭ জনের বয়স ১৭ বছরের কম।  ফলে সব মিলিয়ে নতুন করে ডেল্টার আতঙ্ক ছড়াচ্ছে মহারাষ্ট্রে।

চিকিত্‍সকদের মতে অন্য প্রজাতির তুলনায় ডেল্টা প্লাস অনেক বেশি সংক্রমণ ছড়াচ্ছে এবং ক্ষতির সম্ভাবনাও বেশি। ডেল্টা প্লাসের ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত যে তথ্য সামনে এসেছে তাতে দেখা যাচ্ছে আগের ভেরিয়েন্টগুলির থেকে এর মারণ হারও বেশি। ছোটদের আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যাও বাড়ছে।

জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে মুম্বইয়ে এক ৬৩ বছরের মহিলার মৃত্যু হয়। ডেল্টা প্লাসে সেটাই প্রথম মৃত্যুর ঘটনা সামনে আসে। তিনি করোনা টিকার ২টি ডোজই নিয়ে রেখেছিলেন বলে জানা যায়। তাঁর মৃত্যুর পরই জানা যায় তাঁর নিকটবর্তী আরও ২ জনের শরীরে করোনার এই ভেরিয়েন্ট পাওয়া গিয়েছে বলে জানানো হয়েছে বৃহৎমুম্বাই মিউনসিপ্যাল কর্পোরেশনের তরফে।

মুম্বই শহরতলির ঘাটকোপারের বাসিন্দা এক মহিলা গত ২৭ জুলাই আইসিইউতে মারা যান। জিনোম সিকোয়েন্স পরীক্ষার পর জানা যায় ওই মহিলার মৃত্যুও হয়েছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে। এবং সেই রিপোর্ট আসে ১১ অগাস্ট। আরও জানা গিয়েছে কোভিশিল্ডের ২টি ডোজ নেওয়ার পরেও ২১ জুলাই তাঁর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। বছর পঞ্চাশের এক মহিলাও ২২ জুলাই ডেল্টা ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হন। পরে তিনি সুস্থও হয়ে ওঠেন।  

মহারাষ্ট্রে এ পর্যন্ত যে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে ২ জন রত্নাগিরি জেলার এবং রায়গড়, বিদ এবং মুম্বাই থেকে ১ জন করে।

মহারাষ্ট্রের উত্তরাংশের জলগাঁওয়ে সব থেকে বেশি ১৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর পরই রত্নগিরিতে ১২ এবং মুম্বইয়ের ১১ জন রয়েছেন। এছাড়াও থানে এবং পুনে থেকে ৬ জন করে এবং পালঘর জেলা নন্দেড় এবং গন্ডিয়া এছাড়াও চন্দ্রপুর, আকোলা, সিন্ধুদুর্গ, সংলি, ঔরঙ্গাবাদ, কোলাপুর, বিদের মতো জায়গায় ২ থেকে ৩ জন করে আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে মহারাষ্ট্র স্বাস্থ্য দফতর।

৬৬ জন ডেল্টা প্লাস আক্রান্তের মধ্যে ৩৩ জনের বয়স ১৯ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে। ১৮ জনের বয়স ৪৬ থেকে ৬০ বছর। ৮ জন রয়েছেন ৬০ বছরের উর্দ্ধে এবং ৭ জন ১৮ বছর বয়সের নীচে। আক্রান্তদের মধ্যে মোট ৩৪ জন মহিলা। আক্রান্ত মোট ৬৬ জনের মধ্যে ১০ জনের করোনা টিকার দুটি ডোজ নেওয়া ছিল। ৮জনের প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন। এই ১৮ জনের মধ্যে ২ জন কোভ্যাক্সিন এবং ১৬ জনের কভিশিল্ড নেন।

মোট আক্রান্তের মধ্যে ৬১ জন ইতিমধ্যেই সেরে উঠেছেন। যাঁদের মধ্যে ৩১ জনের মৃদু উপসর্গ ছিল।