খুশকি থেকে মুক্তি পান সহজ উপায়ে – ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে

0
2218
How to get Dandruff free hair

খুশকি থেকে মুক্তি পান সহজ উপায়ে – ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে

শীত কাল আর খুশকি যেন অন্তরঙ্গ বন্ধু। সারা বছর খুশকির প্রকোপ কম থাকলেও শীতকালে তা বহুগুণ বৃদ্ধি পায়। দেখতে খারাপ তো লাগেই তার সাথে খুশকির জেরে ব্যাহত হয় চুলের স্বাস্থ্যও। বাড়ির বাইরে সকলের সামনে যেতে কিন্তু বোধ হয় অনেকের।

প্রতি বাড়িতে মজুত থাকে এমন উপাদান যা ব্যবহার করে খুশকি দূর করতে পারেন সহজেই। জেনে নিন সেগুলি।

নারকেল তেল:

চুলের যত্নে ও খুশকি নির্মূল করতে নারকেল তেলের জুড়ি মেলা ভার। প্রতি বাড়িতেই নারকেল তেল থাকে কম বেশি। তাই ব্যবহার করুন।

কি ভাবে ব্যবহার করবেন

১। স্নানের অন্তত আধঘণ্টা আগে খাঁটী নারকেল তেল মাথায় ভাল ভাবে মালিশ করুন।

২। তারপর হাল্কা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

সপ্তাহে তিন বার খুব ভাল করে নারকেল তেল দিন মাথায়। এই ভাবে ১ সপ্তাহ ব্যবহার করলে ফল পাবেন হাতেনাতে।

আরও পড়ুন – আদা তো প্রত্যেকের রান্না ঘরে থাকে। জেনে নিন আদায় কোন কোন রোগ সারে

পেঁয়াজের রস:

পেঁয়াজ চুলের সমস্যা দূর করতে খুব কার্যকর। পেঁয়াজে থাকা ফাইটোকেমিক্যাল যৌগ খুশকি দূর করতে সাহায্য করে।

কি ভাবে ব্যবহার করবেন

১। প্রথমে মাঝারি মাপের পেঁয়াজ অর্ধেক করুন।

২। তারপর তার থেকে রস বের করুন ও পরিষ্কার কিছুতে ছেঁকে নিন। ৩। সেই রস স্ক্যাল্পে খুব ভাল করে লাগিয়ে রাখুন ঘণ্টা খানেক।

৪। তারপর অল্প শ্যাম্পু ভাল ভাবে মাথা ধুয়ে নিন।

এমন করুন এক থেকে দুই সপ্তাহ। সপ্তাহে দু’বার এই রূপটান চুলের জন্য জরুরি।

আরও পড়ুন – চুল পড়া রোধ করতে যে সকল খাবার গুলি প্রয়োজনীয়

অ্যালোভেরা জেল:

ভারতীয় আয়ুর্বেদের ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা এর অবদান অনস্বীকার্য। ত্বক ও চুলের অসংখ্য সমস্যার সমাধান দেয় এই ঘৃতকুমারী। বাড়িতে একটু বড় টবে বসাতে পারেন ঘৃতকুমারী। খুব বেশি যত্নআত্তিও দরকার হয় না। বাড়িতে না থাকলেও অসুবিধে নেই। এখন অনেক বড় সংস্থার অ্যালোভেরা জেল বাজারে পাওয়া যায়। তার কোনটা কিনে ব্যবহার করতে পারেন সহজে।

কি ভাবে ব্যবহার করবেন

১। স্নানের এক ঘণ্টা আগে ঘৃতকুমারী রস বা অ্যালোভেরা জেল স্ক্যাল্পে বৃত্তাকারে মালিশ করুন।

২। তারপর হাল্কা শ্যাম্পু দিয়ে খুব ভাল করে মাথা ধুয়ে নিনি।

সপ্তাহে দু’বার থেকে তিনবার চুলে লাগান ঘৃতকুমারী। খুশকি দূর হওয়ার সঙ্গে চুলের জেল্লাও বাড়বে।

আরও পড়ুন স্বাস্থ্য নিয়ে এই ভুল ধারণাগুলো ভাঙুন আজই

রসুন:

আয়ুর্বেদ মতে রসুনের ঔষধি গুণাবলি প্রচুর। প্রায় ৪০০ বছর ধরে ঔষধি গুণাবলির জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে রসুন।

কিভাবে ব্যবহার করবেন

১। একটি গোটা রসুন থেকে কয়েকটি কোয়ার খোসা ছাড়িয়ে নিন।

২। তারপর চামচ বা হাতা বা বাটিতে তে হাফ কাপ অলিভ অয়েলের সঙ্গে ওই রসুনের কোয়া গরম করুন।

৩। পাঁচ মিনিট হাল্কা বা মাঝারি আঁচে রাখুন মিশ্রণটিকে।

৪। এরপর সেটি স্ক্যাল্পে বেশি সময় ধরে মালিশ করুন।

৫। এরপর জল দিয়ে খুব ভাল করে চুল ধুয়ে নিন।

যদি রসুনের গন্ধ আপনাকে বিরক্ত করে, তবে শ্যাম্পুও করে নিতে পারেন। শীতের মরসুমে সপ্তাহে দু’বার এই যত্ন দিন চুলকে।

আরও পড়ুন – সকালে খালি পেটে লেবুর জল কেন খাবেন?

বেকিং সোডা:

বেকিং সোডা প্রায় প্রতি বাড়িতেই মজুত থাকে, আর দাম ও অল্প।

কিভাবে ব্যবহার করবেন

১। তিন চামচ বেকিং সোডা নিয়ে সরাসরি দিন ভেজা চুল ও স্ক্যাল্পে। ২। মিনিট দু’য়েক রেখে খুব ভাল করে মাথা ধুয়ে নিন।

বেশি সময় ধরে মাথায় রাখবেন না। এটাতেও ভাল ফল পাওয়া যায়।  

শুষ্ক এবং তেলতেলে, দুই রকমের চুলেই খুশকির সমস্যা দেখা যায়। ঘরোয়া উপকরণগুলি ব্যবহারে খুশকির সমস্যা দূর না হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

আরও পড়ুন – চায়ের ১০টি উপকারিতা, যা আপনার অজানা

লেবু + মধু + দই

লেবু, মধু ও দই দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এটিও বেশ কার্যকরী খুশকি থেকে বাঁচার

কিভাবে ব্যবহার করবেন

১। একটি লেবু থেকে রস বের করুন ২-৩ চামচ

২। ১ চামচ মধু তাতে মেশান

৩। দই নিন ৩ চামচ

৪। মিশ্রণ টি ভালভাবে মেশানো হলে ১০ – ১৫ মিনিট রাখার পর তা ভালভাবে মাথায় মেখে ৪৫ মিনিট রাখুন।

৫। তার শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন।

এই ভাবে সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন উপকার পাবেন।