‘হিন্দু রাষ্ট্র’ এর পক্ষে সমর্থন প্রকাশের জন্য লাঞ্ছিত কর্ণাটকের যুবক

9416
239
communal violance

‘হিন্দু রাষ্ট্র’ এর পক্ষে সমর্থন প্রকাশের জন্য লাঞ্ছিত কর্ণাটকের যুবক

বুধবার কর্ণাটকের ম্যাঙ্গালুরু নগরীর একটি মলে এক ব্যক্তিকে বিতর্ক চলাকালীন সময়ে “হিন্দু রাষ্ট্র” গঠনের পক্ষে সমর্থন প্রকাশ করার পরে একদল শিক্ষার্থী দ্বারা লাঞ্ছিত হতে হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই হামলার একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরে পুলিশ দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছিল যাদের মধ্যে একজন কিশোর।

ম্যাঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার পিএস হর্ষা বলেন “আমরা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি এবং সমস্ত সন্দেহভাজনকে সন্ধানের জন্য তল্লাশি করা হচ্ছে,”

রাজধানী বেঙ্গালুরুর পরে কর্ণাটকের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর ম্যাঙ্গালুরু, এই রাজ্য সাম্প্রদায়িকভাবে সংবেদনশীল। ২০১৫ সালে, বজরং দলের এক কর্মী হত্যার ফলে শহরে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছিল। এছাড়াও ২০১৫ সালেই, একটি সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছিল এবং লক্ষাধিক টাকার সম্পদ ধ্বংস হয়ে যায়। ২০১৮ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে জেলায় জেলায় বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল, এবং তাতে হিন্দু ও মুসলিম দল একে অপরকে দোষ দেয়।

নিউজ এজেন্সি প্রেস ট্রাস্ট অফ ইন্ডিয়া (পিটিআই) এর খবরে বলা হয়েছে, যাকে হেনস্তা ও মারধর করা হয় তার নাম মঞ্জুনাথ এবং তিনি সেই ঘটনার পরে বান্টওয়াল থানায় অভিযোগের পর মামলাটি দায়ের করা হয়। অভিযোগ করার সময় তিনি এটা জানান যে “ভারত হল হিন্দু রাষ্ট্র, সেখানে  মুসলমানদের থাকা উচিত নয়” এর পরই তাকে আক্রমণ করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি এম সাওফানের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির প্রাসঙ্গিক ধারা অনুসারে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে, কিশোর বিচারক আইনের বিধানের অধীনে কিশোরীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।