একটি ক্যারি ব্যাগের দাম ১৪ টাকা! বিল দেখে মাথায় হাত ক্রেতার

0
3057
Vishal shopping mall scam

একটি ক্যারি ব্যাগের দাম ১৪ টাকা! বিল দেখে মাথায় হাত ক্রেতার।

আজ্ঞে হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। কেনাকাটার পর কাউন্টারে বিল দিতে গিয়ে এমনই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হলেন জনৈক মহিলা ক্রেতা। ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর শহরের কেরানিতলার কাছে অবস্থিত ‘বিশাল মেগা মার্ট’ শপিং মলে।

রবিবার সন্ধ্যেয় সপরিবার সেখানে শপিং এ আসেন মেদিনীপুর শহরের রাঙামাটি এলাকার গৃহবধূ মীরাদেবী (নাম পরিবর্তিত)। বাচ্চাদের জামাকাপড় এবং আরও কিছু ঘরোয়া জিনিস কেনেন। কাউন্টারে বিল মেটানোর সময় তাঁকে ক্যারিবাগের কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি হ্যাঁ বলেন। ভেবেছিলেন একটা শপিং ক্যারিবাগের দাম ৫ টাকার বেশি হওয়া উচিত নয়। ছুটির দিনে মলে এমনিতেও বেশ ভিড় ছিল। বিলিং কাউন্টারে তাঁকেও বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছিল। তাই পেমেন্টের পর আর বিল চেক করেননি। কিন্তু বাড়ি ফিরে এসে বিল দেখে তাঁর চক্ষু চড়কগাছ।

আরও পড়ুন – বিশাল কুমির উদ্ধার গ্রাম থেকে, দেখে নিন ভয়ঙ্কর সেই ভিডিও

কারণ ঐ বিলে শপিং ক্যারিব্যাগটির দাম ধরা হয়েছে ১৪ টাকা! ভাবলেন বোধহয় তাঁর ভুল হচ্ছে। তিনি তৎক্ষণাৎ তাঁর স্বামীকে ডেকে দেখান। তিনিও দেখে হতভম্ব হয়ে যান যে সত্যি ক্যারিব্যাগটির দাম নেওয়া হয়েছে ১৪ টাকা। এখন তাঁরা ক্রেতা সুরক্ষা দফতরে এই বিষয়ে অভিযোগ জানানোর কথা ভাবছেন। মধ্যবিত্ত মানুষ আজকাল তাঁদের বেশিরভাগ জিনিসপত্র বিভিন্ন শপিং মল থেকে কেনেন। কারণ এতে তাঁদের সময় অনেক বাঁচে, আবার মলগুলোতে নানা ধরনের আইটেম থাকে যা হয়তো সাধারণ দোকানে থাকেনা।

কিন্তু ইদানীং প্রায় সব মলের কাউন্টারে ক্যারিব্যাগের আলাদা দাম নেওয়া হয়। আপনি, আমি সবাই হয়তো এই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছি। কোর্টের আদেশ অনুযায়ী কোন দোকান বা বিক্রেতা ক্যারিব্যাগের দাম আলাদা করে ক্রেতার থেকে নিতে পারেনা।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে জুতোর দোকান বাটা, পিৎজা দোকান ডমিনোস এবং বিগ বাজার কে অনেক টাকা ফাইন দিতে হয়েছিল এইরকম আলাদা করে শপিং ব্যাগের দাম নেওয়ার জন্যে। তা সত্ত্বেও প্রায় সব মলগুলোতে এখনো ক্যারিব্যাগের দাম আলাদা ভাবে ধার্য করা হয়।

কেন হচ্ছে এইরকম? সেটা কি শুধুমাত্র সাধারণ মানুষের অজ্ঞতার জন্যে? নাকি আমাদের দায়িত্বশীলতার অভাবের কারণে?


আরও পড়ুন – বিশাল কুমির উদ্ধার গ্রাম থেকে, দেখে নিন ভয়ঙ্কর সেই ভিডিও